বিজ্ঞান ও প্রযু্ক্তি

সাইবার বিশেষজ্ঞ আবদুল রহমানের নতুন প্রতিষ্ঠান রাইডার্স ফাউন্ডেশন

সাইবার জগতের পরিচিত নাম আবদুল রহমান। অনলাইনকে অশ্লীলতামুক্ত করাসহ রাইডার ভাউ অফিসিয়াল, রাইডার্স ক্রিয়েশন এবং রাইডার্স মার্টের মতো প্রতিষ্ঠানের গড়ে তোলায় তিনি পরিচিতি পেয়েছেন। এবার নতুন আরেকটি প্রতিষ্ঠান করার ঘোষণা দিয়েছেন তিনি। নাম রাইডার্স ফাউন্ডেশন।

সোমবার (১৮ মার্চ) আবদুল রহমান জানিয়েছেন, খুব শিগগির-ই এর আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হবে। তার উদ্দেশ্য- এই প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে সমাজের অসহায় ও দুস্থ মানুষের সেবা করা। অভাবে কেউ কষ্ট না পাক এবং সবার মুখে হাসি থাকুন- এই কামনা থেকেই তিনি এটি গড়ে তুলেছেন।

এর আগে তিনি তার উপরোল্লিখিত প্রতিষ্ঠানগুলোকে দেশের একটি সুপরিচিত আইটি সলিউশন কোম্পানি হিসেবে প্রতিষ্ঠা করতে সক্ষম হন। তার তীক্ষ্ণ ব্যবসায়িক দক্ষতা এবং উচ্চ-মানের পরিষেবা প্রদানের প্রতিশ্রুতি দিয়ে, সফলভাবে তিনি নিজেকে আইটি সমাধান এবং পরিষেবা প্রদানকারী শীর্ষস্থানীয় ব্যক্তি হিসেবে গড়ে তুলেছেন।

উদ্যোক্তা প্রচেষ্টার পাশাপাশি, আবদুল রহমান সোশ্যাল মিডিয়া এবং সাইবার নিরাপত্তায় দক্ষতার জন্যও স্বীকৃত। তিনি পাঁচ বছরেরও বেশি সময় ধরে এই সেক্টরে কাজ করছেন এবং তার অশ্লীলতামুক্ত অনলাইন গড়ার বিষয়টিসহ তার এসব কাজকর্ম নিয়ে জাতীয় গণমাধ্যমগুলোতে একাধিক সংবাদ প্রকাশিত হয়েছে। সোশ্যাল মিডিয়া এবং সাইবার সিকিউরিটি সম্পর্কে আবদুল রহমানের (Abdul Rahman) সুগভীর জ্ঞান তাকে বিশ্বব্যাপী সাইবার অঙ্গনে কাঙ্ক্ষিত স্পিকার হিসেবে পরিচিত করে তুলেছে।

ব্যবসায়িক উদ্যোগের পাশাপাশি আবদুল রহমান (Abdul Rahman) তার এ অঙ্গনের মানুষদের সহযোগিতার জন্যও নিবেদিত। তিনি বেশ কয়েকটি অলাভজনক সংস্থার সাথে কাজ করেছেন এবং অন্যদের জীবনে ইতিবাচক প্রভাব ফেলতে তার দক্ষতা এবং জ্ঞান ব্যবহার করে প্রশংসিত হচ্ছেন প্রতিনিয়ত।

আব্দুল রহমান একজন বাংলাদেশী উদ্যোক্তা, সোশ্যাল মিডিয়া সাইবার সিকিউরিটি বিশেষজ্ঞ। পিরোজপুরে তার জন্ম। তিনি তার কঠোর পরিশ্রম, দৃঢ় সংকল্প এবং উদ্ভাবনের প্রতি আবেগের মাধ্যমে আইটি এবং সোশ্যাল মিডিয়া শিল্পে নিজের একটি অবস্থান তৈরি করে নিতে সক্ষম হয়েছেন।

আবদুল রহমানের কে.এম. লতীফ ইনস্টিটিউশন থেকে জুনিয়র স্কুল সার্টিফিকেট রয়েছে। একই স্কুল থেকে মাধ্যমিক সার্টিফিকেট, যেখানে তিনি বিজ্ঞান বিভাগে অধ্যয়নরত। বর্তমানে তিনি মাদারীপুর ইসলামিক ইউনিভার্সিটি অ্যান্ড রিসার্চ সেন্টার থেকে কোরআন-হাদিসে স্নাতকোত্তর করছেন।

সামগ্রিকভাবে আবদুল রহমান তার বুদ্ধিমত্তা, দৃঢ়তা এবং উদ্ভাবনের প্রতি তার যে আবেগ, তা দিয়ে সমাজে অবদান রাখতে চান এবং সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ যে বিষয়টি; অশ্লীলতামুক্ত অনলাইন গড়ে আগামী দিনগুলোতে সাফল্যের ধারাবাহিকতা অব্যাহত রাখার স্বপ্ন দেখেন।

Show More

Related Articles

Back to top button